৭১-এ পথ চলায় আওয়ামী লীগ

  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক : ১৯৪৯ সালের এই দিনে পুরান ঢাকার রোজ গার্ডেনে এক ঐতিহাসিক প্রেক্ষাপটে ২৩জুন জন্ম নেয় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নামের এই ক্ষমতাসীন দল। এরপর ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে জাতি গঠনের প্রতিটি সোপানে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে দলটি। আর আগামীকাল রোববার (২৩ জুন) ৭০ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পেরিয়ে ৭১-এ পথ চলায় পা রাখবে আওয়ামীলীগ।

প্রতিষ্ঠাকালীন সময়ে দলটির নাম ছিল ‘পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ’।  ১৯৫৫ সালে ধর্ম নিরপেক্ষতাকে আদর্শ হিসেবে গ্রহণ করে দলের পুনঃনামকণ হয় ‘পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী লীগ’। এই দলের নেতৃত্বে ’৬৬-এর ছয়দফা, ’৬৯-এর গণআন্দোলনসহ দীর্ঘ সংগ্রামের পর ১৯৭১ সালে স্বাধীনতা লাভ করে। পৃথিবীর মানচিত্রে  স্থান পায় লাল সবুজের পতাকা।

সংগ্রাম ও সাফল্যের ৭০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বর্ণাঢ্য আয়োজনে আওয়ামী লীগের এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করা হবে।

১৯৪৭ সালে পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার কিছু দিনের মধ্যে শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৪৮ সালের ৪ জানুয়ারি গঠন করেন সরকার বিরোধী ছাত্র সংগঠন পাকিস্তান মুসলিম ছাত্রলীগ। এরই ধারাবাহিকতায় পরের বছর ১৯৪৯ সালের ২৩ জুন ঢাকার স্বামীবাগে কেএম দাস লেনের রোজ গার্ডেনে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর উদ্যোগে আয়োজিত কর্মী সম্মেলনে গঠন করা হয় পূর্ব পাকিস্তান আওয়ামী মুসলিম লীগ।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১৯৬৬ সালে  ঐতিহাসিক ৬ দফা ঘোষণা করেন। সেই ৬ দফা আন্দোলনের পথ বেয়েই ’৬৯-এর গণঅভ্যুত্থান, ’৭০-এর নির্বাচনে বাঙালির  সংখ্যাগরিষ্ঠতা লাভ ও ’৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধে স্বাধীন বাংলাদেশের অভ্যুদয় ঘটে।

৭০ বছরের পথ পরিক্রমায়  দলটিকে অনেক চড়াই-উৎরাই পার হতে হয়েছে। ১৯৭৫ সালের আগস্টে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্ব-পরিবারে হত্যা করা হয়। এর পর অস্তিত্ব সংকটেই পড়ে গিয়েছিল আওয়ামী লীগ নামের এই দলটি। দলের ভেতরেও শুরু হয়েছিল ভাঙন।

১৯৮১ সালে দলের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর দেশে ফিরেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  এক দশক ধরে দলকে সংগঠিত করেন তিনি। ১৯৯৬ সালে তার নেতৃত্বেই ২১ বছর পর সরকার গঠন করে আওয়ামী লীগ।

২০০৮ সালের নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে পর পর  হ্যাটট্রিক জয়ী হয়ে আবার সরকারে দলটি।

আওয়ামী লীগ ১৯৫৪ সালে (যুক্তফ্রন্ট), ১৯৭১ সালে স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম সরকার হিসেবে, ১৯৯৬ সালে এবং ২০০৮ সালের নির্বাচনে জনগণের সমর্থন নিয়ে ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হয়েছে।

সাফল্যের ৭০তম পূর্তির বর্ণাঢ্য আয়োজন উদযাপনের জন্য আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে বিস্তারিত কর্মসূচি নেওয়া হয়েছে।

কর্মসূচিতে আছে আজ সূর্যোদয়ের ক্ষণে কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সারাদেশের দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল সাড়ে আটটায় ধানমন্ডিতে বঙ্গবন্ধু ভবনে জাতির জনকের প্রতিকৃতিতে পুষ্পমাল্য অর্পণের মাধ্যমে তার প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন।

এছাড়াও, সকাল ১১টায় টুঙ্গিপাড়ায় জাতির জনকের সমাধিতে দলের সভাপতি মণ্ডলীর সদস্য কর্নেল (অব.) ফারুক খানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল শ্রদ্ধা জানাবে।

পরদিন ২৪ জুন বিকাল ৪টায় রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্র প্রাঙ্গণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে।

সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তৃতা করবেন দলের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আলোচক হিসেবে আরো উপস্থিত থাকবেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা ও দেশবরেণ্য বুদ্ধিজীবীরা।
যুবলীগ, স্বেচ্ছাসেবক লীগ, শ্রমিক লীগ, মহিলা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনগুলোও আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনে নানা কর্মসূচির আয়োজন করেছে।

আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলটির সাধারণ সম্পাদক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের আগামীকাল (২৩ জুন) আওয়ামী লীগের ৭০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনসহ  যথাযথ মর্যাদায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করার জন্য আওয়ামী লীগ, সহযোগী ও ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনের সকল জেলা, উপজেলাসহ সব স্তরের নেতা-কর্মী, সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ।

জুন ২২, ২০১৯ ১০:১২

(Visited 39 times, 1 visits today)