‘স্যার ২০ দিন ধরে রিমান্ডে আছি, একটু কনসিডার করেন’

‘স্যার ২০ দিন ধরে রিমান্ডে আছি, একটু কনসিডার করেন’
  •  
  •  
  •  
  •  

ঢাকা১৮ প্রতিবেদক : মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরীক্ষা-নিরিক্ষায় প্রতারণার অভিযোগে গ্রেপ্তার প্রতারক শাহেদকে ১০ দিনের রিমান্ডে চেয়ে আজ সকালে আদালতে হাজির করেছে র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটেলিয়ান (র‍্যাব)। এ সময় পদ্মা ব্যাংকের (সাবেক দ্য ফারমার্স ব্যাংক) অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান শাহেদ করিম কাঠগড়ায় দাঁড়িয়ে বিচারকের উদ্দেশে বলেন, স্যার আমি কি একটা কথা বলতে পারি? স্যার বিশ দিন ধরে রিমান্ডে আছি, স্যার রিমান্ডটা একটু কনসিডার করেন।

সোমবার (১০ আগস্ট) সকালে ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ এর আদালতে শুনানি শেষে শাহেদের সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। রিমান্ডের আদেশের পর বিচারক শাহেদকে বলেন, আপনার কিছু বলার আছে? এমন প্রশ্নের জবাবে শাহেদ এ কথা বলেন।

শাহেদ আরও বলেন, আমি খুব অসুস্থ। স্যার বিশ দিন ধরে রিমান্ডে আছি। সামনে আরও ২৭ দিনের রিমান্ড আছে। বিষয়টা বিবেচনা করেন।

আরও পড়ুন : মেজর সিনহার মাকে ফোন দিয়ে যা বলেছিল ওসি প্রদীপ

দুদকের আইনজীবী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মোশাররফ হোসেন কাজল। তিনি শুনানিতে বলেন, শাহেদ পদ্মা ব্যাংকের টাকা আত্মসাত করেন। তাকে রিমান্ডে নিলে প্রকৃত রহস্য উদঘাটন হবে। এরপর বিচারক তার সাত দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

রিমান্ড শুনানি শেষে তাকে আবার কারাগারে পাঠানো হয়।

মামলার আসামিরা হলেন- পদ্মা ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদের নির্বাহী/অডিট কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতী, বকশীগঞ্জ জুট স্পিনার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রাশেদুল হক চিশতি, রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ এবং হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) মো. ইব্রাহিম খলিল।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১৫ সালের ১১ জানুয়ারি থেকে ২১ জানুয়ারি সময়ে আসামিরা পারস্পরিক যোগসাজশে অসৎ উদ্দেশ্যে ক্ষমতার অপব্যবহার করে অর্থ স্থানান্তর, রূপান্তরের মাধ্যমে ঋণের নামে পদ্মা ব্যাংক লিমিটেডের গুলশান করপোরেট শাখার এক কোটি টাকা (যা সুদাসলসহ ১৫ জুলাই পর্যন্ত স্থিতি দুই কোটি ৭১ লাখ টাকা) আত্মসাৎ করেন। আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯/১০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারা এবং মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইন, ২০১২ এর ৪ ধারায় মামলা হয়।

আরও পড়ুন : আরও ৭ দিনের রিমান্ডে শাহেদ

ঢা/কেএম

আগস্ট ১০, ২০২০ ২:২৫

(Visited 513 times, 1 visits today)