সবুজবাগে নটরডেম ছাত্রের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার

সবুজবাগে নটরডেম ছাত্রের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর সবুজবাগের একটি বাসার ভেতর থেকে হাত-পা বাধা অবস্থায় ইয়োগেন হেনছি গোন সালভেজ (২২) নামের এক নটরডেম ছাত্রের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ওই ছাত্র নটরডেম কলেজের ডিগ্রির ২য় বর্ষে লেখাপড়া করতেন।

সবুজবাগের কদমতলার ৯ নম্বর লেনের ৭৭/এ নম্বর বাসার নিচতলা থেকে মঙ্গলবার (১২ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত ২টার দিকে ওই ছাত্রের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।  বুধবার লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) মর্গে পাঠানো হয়।

কদমতলা বাসার মালিকের মেয়ে তাবাসসুম মেহজাবিন জানায়, চলতি মাসের এক তারিখে নিচ তলার একটি কক্ষ ভাড়া নেয় একটি ছেলে। তারা ভাই বোন থাকবে বলে জানায়। দুই দিন আগে ছেলেটি আরও এক নারীকে নিয়ে বাসায় আসে। তখন বলে তারা ভাই বোন, এখানে থাকবে। বাসার চাবি নেয় পরিস্কার করার জন্য। ওই দিন রাত ১০টার দিকে বাসার বাইরে ছিটকানী দেখে দরজা খোলা হয়। পরে রক্তাক্তক মৃতদেহ পরে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

ইয়োগেনের বড় বোন ডালিন সিন্তি গোন সালভেজ জানান , চট্টগ্রাম কোতয়ালীর পাথরঘাটা এলাকার ম্যাকলিন গোন সালভেজের ছেলে। তিনি পুরান ঢাকার নারিন্দা এলাকায় একটি বাসায় মামাতো বোন শিপ্রার সঙ্গে থাকতেন । ইয়োগেন নটরডেম কলেজের ডিগ্রি ২য় বর্ষের ছাত্র ছিল।

শিপ্রা বাসায় না থাকায় গত শুক্রবার আমাদের নদ্দার বাসায় আসে। গতকাল সকাল ৮টার দিকে কলেজে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসা থেকে বের হয়।

তিনি আরও জানান, রাত ১০টা পর্যন্ত বাসায় না আসায় ফোনে যোগাযোগের চেষ্ট করা হয়। কিন্তু কয়েকবার রিং হয়ে বন্ধ হয়ে যায়। পরে রাত সাড়ে ১২টার দিকে চট্টগ্রাম থেকে তার বাবা ফোনে জানায়, ইয়োগেন এর মৃতদেহ পাওয়া গেছে সবুজবাগ এলাকায়। সংবাদ পেয়ে রাতেই তারা মৃতদেহ শনাক্ত করে। ইয়োগেন কিছু দিন আগে রবি কল সেন্টারে চাকরির জন্য ট্রেনিং করছিল। তার কোনো শত্রু ছিল না বলেও জানান তার বোন।

সবুজবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল কুদ্দুস ফকির জানায়, মঙ্গলবার রাতে খবর পেয়ে বাসা থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করে। তার পেটে সাতটি ও পিঠে চারটি ছুরিকাঘাতের চিহ্ন আছে, তার হাত পা বাধা কাপড় দিয়ে বাধা ছিল। সিসি টিভির ফুটেজ সংগ্রহ করা হয়েছে।  এ নিয়ে তদন্ত চলছে।

(Visited 2 times, 1 visits today)