শ্রীমঙ্গলে অনুমোদন ছাড়াই ভবন নির্মাণ, ঝুঁকিতে আশেপাশের বাড়ি

  •  
  •  
  •  
  •  

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি: মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল শহরে অনুমোদন ছাড়াই বহুতল ভবন নির্মানের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

ওই ভবন নির্মানে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার যথাযথ প্রক্রিয়ায় ভবন নির্মান না করায় আশপাশের বেশ কিছু বাড়ি ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে-এমন অভিযোগে স্থানীয় বাসিন্দারা শ্রীমঙ্গল পৌরসভা ও থানায় লিখিত অভিযোগ করার খবর পাওয়া গেছে।

পৌরসভার ভেতর অনুমোদন ছাড়া কিভাবে বহুতল ভবন নির্মাণ হয় তা নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে।

তবে, নির্মানাধিন বাসার মালিক পক্ষের লোকজন জানিয়েছেন, যথারীতি সকল নিয়ম মেনে ভবন নির্মাণ কাজ করা হচ্ছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শ্রীমঙ্গল পৌরসভার মাষ্টারপাড়া এলাকায় জনৈক রাধা কান্ত বিশ্বাস নামে এক ব্যাতি গত বছর আড়াই শতক জায়গা ক্রয় করেন। এবছর শুরুতে সেখানে মাটি ভরাট করে ৪ তলা বিশিষ্ট একটি দালান নির্মানের কাজ শুরু করেন।

বর্তমানে ২তলার কাজ সম্পন্ন হওয়ার পর সেখানকার স্থানীয় বাসিন্দারা আপত্তি জানিয়ে গত ২৫ মে শ্রীমঙ্গল পৌরসভায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন।

অভিযোগে বলা হয় পৌরসভায় আপত্তি জানানোর পর ওইদিন থেকে ভবন র্নিাণের কাজ বন্ধ। এলাবাসীর অভিযোগ পুকুর ভরাট করে ফাইলিং ছাড়া বহুতল নির্মাণ এবং এলাবাসী চলাচলের রাস্তা দখল করে ভবন নির্মাণ করার একদিকে ঝুঁকি বেড়েছে অন্যদিকে রাস্তা বন্ধ থাকায় চলাচল ব্যহত হবে।

স্থানীয় তিমির বনিক বলেন, উনি তার বিল্ডিং নির্মাণ করবেন সেখানে আমাদের অভিযোগ থাকবে কেন? কিন্তু
উনি ফাইলিং না করায় এবং রাস্তার বিল্ডিং করায় আমরা এলাকাবাসী অভিযোগ দিয়েছি। আমাদের সমস্যা না হলে অভিযোগের দরকার ছিলনা।

প্রতিবেশি সারওয়ার জাহান চঞ্চল জানান, নিয়মমত রাস্তা থেকে ৩ ফুট ভেতরে বিল্ডিং করার থাকলেও এই ব্যক্তি রাস্তার দেড়ফুট ভেতরে ঢুকিয়েছেন।

পুকুরের উপর ফাইলিং ছাড়াই ৩ তলা তুলেছেন এই বিষয়টি নিয়েই আমাদের আপত্তি।
এবং আমরা অভিযোগ দিয়েছি কর্তৃপক্ষের কাছে।

আরেক প্রতিবেশি কানু সাহা অভিযোগ করে বলেন এখানে একটি পুকুর ছিলো যেটি ভরাট করে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে বিল্ডিংটি তৈরী করা হচ্ছে যা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ তাই আমরা এলাকার সবাই মিলে পৌরসভা এবং থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেছি বর্তমানে কাজ বন্ধ রয়েছে।

অভিযোগের ব্যাপারে জমির মালিক রাধা কান্ত বিশ্বাস বলেন, আমি পৌরসভার লিখিত আবেদন করি কয়েকমাস আগে।

এবং স্বীকৃত ইঞ্জিনিয়ার দিয়ে পরিকল্পনা করেই কাজ শুরু করি। আমার আবেদনের পর পৌরসভা থেকে মৌখিক অনুমোদন দিয়ে আমাকে বলা হয়েছিল কাজ শুরু করেন , আমাদের প্রসেস করতে একটু সময়
লাগবে।

আমি রাস্ত দখল করিনি বরং অভিযোগ দিয়েছেন যে ২/৩ জন তাদের কেউ কেউ রাস্তার উপর ঘর করেছেন। ব্যক্তিগত হিংসা থেকে আমাকে হয়রানি করা হচ্ছে।

শ্রীমঙ্গল থানার এস আই মো.সাইফুল বলেন, এ বিষয়ে আমরা একটা অভিযোগ পেয়ে সেখানে গিয়ে কাজ বন্ধ করে দিয়ে আসি। আর তাদেরকে বলেছি ভবন নির্মাণ এর পৌরসভার অনুমতি পত্র আমাদেরকে দেখানোর জন্য। কিন্তু এখন পযন্ত কাগজপত্র নিয়ে কেউ আসেনি।

এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল পৌরসভার প্রকৌশলী জহির আহমেদ বলেন, আমাদের কাছে একটি অভিযোগ করেছেন মাষ্টার পাড়া এলাকাবাসী সেই অভিযোগের পরিপেক্ষিতে আমার একটি নোটিশ পাঠিয়ে ভবন মালিককে কাজ বন্ধ রাখার পরামর্শ দেই এবং আরেকটি নোটিশে ভবন এলাকা ও রাস্তা জরিপ করার বিষয়ে অবগত করানো হয়
এবং জরিপের সিদ্ধান্ত পরবর্তীকালে জানিয়ে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়।

ঢা/মমি

জুন ৩০, ২০২০ ৪:৩১

(Visited 61 times, 1 visits today)