শয্যাশায়ী কিম জং উন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উনের শারীরিক অবস্থা আশঙ্কাজনক৷ একটি অস্ত্রোপচারের পর থেকেই তার শারীরিক অবস্থার অবনিত হয়েছে৷ মার্কিন গোয়েন্দা বিভাগ সূত্রের খবর৷

শারীরিক অবস্থার অবনতির জন্যই কিম সম্প্রতি তার দাদুর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে গত ১৫ এপ্রিল উপস্থিত থাকতে পারেননি৷ তারপর থেকেই কিমের শারীরিক অবস্থা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়৷ একটি সরকারি বৈঠকে সপ্তাহ আগে তাকে শেষবার দেখা গিয়েছিল৷

উত্তর কোরিয়া বর্জনকারীদের দ্বারা পরিচালিত দক্ষিণ কোরিয়াভিত্তিক অনলাইন পোর্টাল ডেইলি এনকে’র রিপোর্ট, চলতি মাসের শুরুতে কিমের হার্টে অস্ত্রোপচার হয়েছে। উত্তর পিয়ংইয়ং প্রদেশে একটি বাড়িতে চিকিৎসা চলছে তার।

উত্তর কোরিয়ার ভেতরকার অজ্ঞাত একটি সূত্রের বরাত দিয়ে এনকে জানিয়েছে, মাত্রাতিরিক্ত ধূমপান, স্থূলতা, বিষণ্নতার কারণে হার্টের জটিলতায় ভুগছিলেন কিম। অস্ত্রোপচার জরুরি ছিল তার।

তবে এ ব্যাপারে উত্তর কোরিয়া সরকারের তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে এএফপি।

কিমের হার্টে অস্ত্রোপচার নিয়ে সংবাদ প্রকাশ করেছে বিবিসি, সিএনএন, নিউইয়র্ক টাইমস, গার্ডিয়ানসহ পশ্চিমা প্রভাবশালী প্রায় সব সংবাদমাধ্যম।

যুক্তরাষ্ট্র সরকারের একটি সূত্রের বরাত দিয়ে সিএনএন জানিয়েছে, ওয়াশিংটন বিষয়টিতে নজর রাখছে। একটি গোপন সূত্রে তারা নাকি জানতে পেরেছে ‘অস্ত্রোপচারের পর থেকে মৃত্যুভয়ে আছেন কিম’। কিন্তু সূত্রটি সম্পর্কে বিস্তারিত কিছু জানায়নি তারা।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট ভবন ব্লু হাউসের এক মুখপাত্র বিবৃতিতে জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে নিশ্চিত নয়। এ নিয়ে বিশেষ কোনো তৎপরতাও চালায়নি তারা।

এ ব্যাপারে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট মুন জায়ে-ইনের নিরাপত্তা উপদেষ্টা এএফপিকে বলেন, কিমের স্বাস্থ্য সংক্রান্ত কোনো কিছুই তিনি শোনেনি।

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমকে নিয়ে সবশেষ দেশটির সরকার নিয়ন্ত্রিত সংবাদমাধ্যম খবর প্রকাশ করেছিল ১২ এপ্রিল। এরআগেও বেশ কয়েকবার কিমের স্বাস্থ্য নিয়ে খবর প্রকাশিত হয়েছিল বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে।

ঢা/জেআই

(Visited 1 times, 1 visits today)