ময়মনসিংহের গৃহবধূর লাশ উদ্ধার

নওগাঁয় ৩২ খণ্ড লাশ উদ্ধার
  •  
  •  
  •  
  •  

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের ধোবাউড়ায় গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় এক গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

শনিবার (১৫ আগস্ট) বিকেলে ঘোষগাঁও এলাকার শ্বশুরবাড়ি থেকে লামিয়া লাইজুর উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত গৃহবধূ লাইজুর পিতার দাবী, তার মেয়েকে যৌতুকের টাকার জন্য হত্যা করা হয়েছে।

রবিবার (১৬ আগস্ট) সকালে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিক্যালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

ধোবাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ জানান, এ ঘটনায় আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে ধোবাউড়া থানায়, নিহত গৃহবধূ লাইজুর স্বামী, শ্বশুর ও শাশুড়িকে আসামি করে মামলা রুজু করা হয়েছে।

লাইজুর শ্বশুর শাহাজ উদ্দিনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ঘটনার পর থেকে লাইজুর স্বামী ও শাশুড়ি পলাতক রয়েছে। তাদেরকে গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে পরবর্তীতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে ।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ১১ মার্চ ধোবাউড়া উপজেলার ঘোষগাঁও গ্রামের শাহাজ উদ্দিনের ছেলে মতিউর রহমান শরীফের (২৩) সঙ্গে বিয়ে হয় ময়মনসিংহ নগরীর নাটকঘর বাইলেনের মুদি দোকানদার আব্দুছ ছামাদের কন্যা লামিয়া লাইজুর। বিয়ের পর থেকে স্বামীর অত্যাচার নির্যাতন সহ্য করে বাবার কাছ থেকে টাকা নিয়ে স্বামীকে দিতেন গৃহবধূ লাইজু।

আব্দুছ ছামাদ জানান, আমার মেয়েকে বিয়ের পর থেকে ১০ লাখ টাকার জন্য চাপ দেয় শ্বশুর বাড়ির লোকজন। গরুর খামার করবে, তাই টাকা দিতে হবে। আমি বলেছি বাবা কিছুদিন আগে ৫ ভরি স্বর্ণ দিয়েছি।

তোমাদের বিয়ের সময় ৪ লাখ টাকা খরচ করেছি। এখন টাকা কোথায় পাব। কিছুদিন সময় দাও। টাকা দিতে না পারায় অত্যাচার করে আমার মেয়েকে মেরে ফেলেছে মেয়ের শ্বশুর বাড়ির লোকজন।

ঢা/মমি

আগস্ট ১৭, ২০২০ ১১:৩২

(Visited 22 times, 1 visits today)