মাদক-জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি সফল : রাষ্ট্রপতি

মাদক-জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি সফল : রাষ্ট্রপতি
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেন, ‘দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। দুর্নীতি জুয়া, মাদক, জঙ্গিবাদ, উগ্রবাদ ও সাম্প্রদায়িকতা প্রতিরোধে সরকারের ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে। যা বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হচ্ছে।’’

একাদশ জাতীয় সংসদের ষষ্ঠ অধিবেশনে বৃহস্পতিবার (৯ জানুয়ারি) রাষ্ট্রপতির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।

এর আগে বিকাল ৪টায় স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে  অধিবেশন  শুরু হয়।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘সব রাজনৈতিক দলের অংশগ্রহণে ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে একাদশ জাতীয় সংসদ গঠিত হয়েছে।’

রাষ্ট্রপতি বলেন,  ‘দেশে আইনের শাসন সুসংহত ও সমুন্নত রাখার ক্ষেত্রে  বর্তমান সরকারের সর্বাত্মক প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। দুর্নীতি, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। সুশাসন প্রতিষ্ঠার জন্য দুর্নীতি দমন কমিশনকে আরও শক্তিশালী করা হয়েছে।

জাতীয় মানবাধিকার কমিশন ও তথ্য কমিশন প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু হত্যা মামলা এবং মানবতাবিরোধী অপরাধ মামলার রায় কার্যকর করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, পলাতক আসামিদের ফিরিয়ে আনার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা ও হত্যা মামলা এবং বিডিআর হত্যাকাণ্ড মামলার বিচারকার্য সম্পন্ন হয়েছে। বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। এছাড়া, হলি আর্টিজান হামলা মামলা, নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলাসহ বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর হত্যা মামলার রায় দ্রুত ঘোষণা করা হয়েছে।’

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘বাংলাদেশের জনগণের বিপুল সমর্থনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে চতুর্থবারের মতো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সরকার গঠিত হয়।’’

বর্তমান সরকারের সাফল্যের প্রসঙ্গে রাষ্ট্রপতি বলেন,  ‘গত মহাজোট সরকারের ধারাবাহিকতায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আজীবন লালিত স্বপ্ন সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার ২০২১ সালের মধ্যে মধ্য-আয়ের এবং ২০৪১ সালের মধ্যে একটি উন্নত সমৃদ্ধিশালী বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের শ্রেণিতে উত্তরণের সব যোগ্যতা অর্জন করেছে। আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল।’

উল্লেখ্য, খ্রিষ্টীয় নতুন বছরের প্রথম এই অধিবেশন চলবে ১৮ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

ঢা/ এনএএইচ/

জানুয়ারি ৯, ২০২০ ১১:১২

(Visited 3 times, 1 visits today)