মাত্রাতিরিক্ত চুল পড়া বন্ধে যা করবেন

hair-naturally
  •  
  •  
  •  
  •  

লাইফস্টাইল ডেস্ক: মানুষের সৌন্দর্যের অন্যতম আকর্ষণ হচ্ছে চুল। সম্প্রতি সময়ে চুল পড়া সমস্যা বড় উদ্বেগের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

নানা কারণেই আপনার চুল পড়তে পারে। যেমন- পরিবেশ দূষণ, বয়স, স্ট্রেস, স্মোকিং, পুষ্টির অভাব, হরমোনাল ইমব্যালেন্স, জেনেটিক কারণ, স্কাল্প ইনফেকশন, হেয়ার প্রডাক্টের মাত্রাতিরিক্ত ব্যবহার, বেশ কিছু ঔষধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে, থাইরয়েড, অটোইমিউন ডিজজ, পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিনড্রম, অ্যানিমিয়া প্রভৃতি।

আমাদের মাথায় প্রায় এক লাখ চুল রয়েছে। যার মধ্যে প্রতিদিন ৫০ থেকে ১০০ টা চুল পড়ে যাওয়াটা স্বাভাবিক ব্যাপার। কিন্তু এর থেকে বেশি মাত্রায় চুল পড়তে শুরু করলেই সেটা চিন্তার বিষয়।

এক্ষেত্রে যত শীঘ্রই সম্ভব প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে, না হলে মাথা ফাঁকা হয়ে যেতে সময় লাগবে না। জেনে নিন চুল পড়া কমানোর কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি-

দই
দুই চামচ দইয়ের সাথে এক চামচ মধু এবং এক চামচ লেবুর রস নিয়ে ভাল করে মিশিয়ে নিন। যখন দেখবেন প্রতিটি উপাদান ঠিক মতো মিশে গেছে, তখন মিশ্রনটা ভাল করে চুলে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রেখে দিন।

এরপর ঠান্ডা পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এভাবে প্রতি সপ্তাহে একবার করলেই চুল পড়া বন্ধ হবে।

নারকেল দুধ
এক কাপ নারকেল দুধ নিয়ে ধীরে ধীরে স্কাল্পে লাগান। তারপর একটা টাওয়াল দিয়ে ২০ মিনিট রেখে ভাল করে চুলটা ধুয়ে ফেলুন।

এমনটা সপ্তাহে কয়েকবার করলেই চুল পড়া কমতে শুরু করবে। এর কারণ নারকেল দুধে উপস্থিত ভিটামিন ই, চুলের গভীরে ময়েসশ্চারাইজারের ঘাটতি দূর করে। এরফলে চুল পড়ার হার কমে যায়।

বিটরুট
বিটরুটে রয়েছে প্রচুর পটাশিয়াম, প্রোটিন, ভিটামিন বি এবং সি যা চুল পড়া কমাতে সাহায্য করে। এক্ষেত্রে পরিমাণ মতো বিটরুট পাতা নিয়ে পানিতে সিদ্ধ করে নিতে হবে।

তারপর পাতাগুলো গুঁড়ো করে নিয়ে মেথির সাথে মিশিয়ে স্কাল্পে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে দিন। সপ্তাহে তিনবার এমনভাবে চুলের পরিচর্যা করতে হবে।

মেথি
চুল পড়া বন্ধ করতে মেথি দারুন কাজে আসে। মেথিতে উপস্থিত বেশ কিছু উপাদান চুলের বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

তাই যখনই দেখবেন চুল পড়ার হার খুব বেড়ে গেছে, তখনই অল্প করে মেথি বীজ নিয়ে এক গ্লাস পানিতে এক রাত ভিজিয়ে রাখবেন। পরদিন বীজগুলি বেটে নিয়ে একটা পেস্ট বানাবেন।

সেই পেস্টটা ভাল করে মাথায় লাগিয়ে ৪০ মিনিট রেখে দিয়ে ধুয়ে নেবেন। টানা একমাস, প্রতিদিন এই মিশ্রনটি মাথায় লাগালে চুল পড়া কমার সাথে সাথে মাথা ভর্তি চুলের স্বপ্নও পূরণ হবে।

নিম পাতা
এই প্রকৃতিক উপাদনটিতে উপস্থিত অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল প্রপার্টিজ চুলের গোড়ায় কোনও ধরনের সংক্রমণ হওয়ার আশঙ্কা কমিয়ে দেয়।

এটা ব্যবহার করলে মাথার খুশকির প্রকোপও কমে। এমন ধরনের রোগের হাত থেকে যখন মুক্তি মেলে, তখন স্বাভাবিকভাবেই চুল পড়া কমে যায়।

পেঁয়াজে রস
পেঁয়াজের রসে উপস্থিত সালফার হেয়ার ফলিকেলসে রক্ত চলাচল বাড়িয়ে দিয়ে নিমেষে চুল পড়া কমিয়ে দেয়। তাছাড়া পেঁয়াজের রসে রয়েছে বিপুল পরিমাণে অ্যান্টি-বায়োটেরিয়াল প্রপাটিজ, যা স্কাল্পে ঘর বেঁধে থাকা জীবাণুদের মেরে ফেলে।

ফলে স্কাল্প ইনফেকশনের সাথে সাথে চুল পড়ার অশঙ্কাও হ্রাস পায়। যেভাবে চুলে লাগাবেন পেঁয়াজের রস: একটা পেঁয়াজ থেকে রস সংগ্রহ করে নিন। তারপর সেই রস সরাসরি মাথায় লাগিয়ে ম্যাসেজ করুন।

৩০ মিনিট পরে শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে দুই বা তিন বার এই পদ্ধতিতে চুলের পরিচর্যা করলে ভাল ফল পাওয়া যাবে।

ঢা/তাশা

অক্টোবর ১২, ২০১৯ ৫:৩১

(Visited 4 times, 1 visits today)