বসন্তের সাজে সেজেছে সুনামগঞ্জের শিমুল বাগান

  •  
  •  
  •  
  •  

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: হাওর বাওর ও জলজোৎস্নার জেলা সুনামগঞ্জ। যেখানে জন্ম নিয়েছেন রাধা রমন, হাছন রাজা, দুর্বিণ শাহ, শাহ আব্দুল করিম, দেওয়ান আজরফ সহ অনেক কীর্তিমান কবি, সাহিত্যিক, গীতিকার।

সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার বাদাঘাট ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান প্রকৃতিপ্রেমি জয়নাল আবেদীন তাহিরপুরে অবস্থিত রূপের নদী যাদুকাটার তীরে নিজস্ব ব্যবস্থাপনায় ৩০ একর জায়গার উপর সারি সারি ভাবে এক হাজার শিমুলের চারা রোপন করেছিলেন।

২০০২ সালে শিমুল বাগান প্রতিষ্ঠার পর থেকেই প্রকৃতি প্রেমী মানুষের নজর কাড়ে এই বাগানের দিকে। শিমুল গাছ ধীওে ধীওে বড় হতে থাকলে মানুষজনের আগমনও শুরু হয়। ফাগুন মাসে শিমুল গাছে ফুল ফুটবেই।

জয়নাল আবেদীনের শিমুল বাগান আজ প্রস্ফুটিত। জয়নাল আবেদীন নেই, আছে তার কর্ম। ফাগুনের শুরুতে শিমুল বাগের প্রতিটি গাছের ডালে ডালে লাল ফুল প্রকৃতিপ্রেমি ও ভ্রমন পিপাসুদের আকৃষ্ট করছে। পাশাপাশি
সুনামগঞ্জের শিমুল বাগান বসন্তের আগমনে ভ্রমন পিপাসুদের হাতছানি দিয়ে ডাকছে। গাছ তলায় বসে প্রেমিক-প্রেমিকারা তাদের প্রাণখুলে মনের কথা প্রকাশ করছে। প্রতিদিনই হাজারো পযর্টকদের আনাগোনায় মুখরিত হয়ে উঠছে শিমুলবাগান ও তার আশাপাশের পরিবেশ।

সড়ক যোগাযোগ ভাল না থাকায় অনেক কষ্ট পোহাতে হচ্ছে ভ্রমনকারীদের। এশিয়ার আর কোন দেশে এমন বিরল ফুলের বাগান নেই দাবী করে পযর্টকরা এভাবেই তাদের আকুতি তুলে ধরেন। স্থানীয় বাদাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান ও শিমুল বাগানের মালিক আপ্তাব উদ্দিন বলেন- শিমুলবাগানে আসা পর্যটকদের ওয়াস রুম, বসার
স্থান,ক্যান্টিন তৈরীর জন্য কাজ করে যাচ্ছি।

রাস্তার দুর অবস্থা দুর করার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানান তিনি।

শিমুলবাগানসহ তাহিরপুরের পর্যটন স্পটগুলোতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে এবং রাস্তাঘাটের সমস্যা দুর করতে সরকার মেঘা প্রকল্প হাতে নেয়ার কথা জানিয়ে তাহিরপুর উপজেলা চেয়ারম্যান করুণা সিন্ধু চৌধুরী বাবুল বলেন- জয়নাল আবেদীন এর সৌখিন এই কাজটি আজ সারা দেশে প্রশংসিত। আমরা শিমুল বাগান, এই এলাকার রাস্থা ঘাট ও পর্যটকদের জন্য ভাল মানের থাকা খাওয়ার সুবিধার জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছি।

ঢা/এএইচ/আরকেএস

(Visited 12 times, 1 visits today)