বধূ সেজেও যাওয়া হল না বরের বাড়ী

বধূ সেজেও যাওয়া হল না বরের বাড়ী

নিজস্ব প্রতিবেদক : মেয়ে সেজেছিল বধূর সাজে। কিন্তু যেতে পারলনা বরের বাড়ী। মেয়েটির বয়স ছিল অপ্রাপ্ত। বাধা হয়ে দাড়ালো প্রশাসন।

অপরদিকে বিয়ের আসর থেকে পালিয়েছে (নিকাহ রেজিস্টার) কাজী।

শুক্রবার এমন ঘটনাটি ঘটেছে গাইবাদ্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার ৭ নং ইদিলপুর ইউনিয়নের কুঞ্জমহিপুর গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কুঞ্জমহিপুর গ্রামের পশ্চিমপাড়ার জনৈক ব্যক্তির অপ্রাপ্ত বয়সের মেয়ের সঙ্গে পলাশবাড়ী উপজেলা সদরের নুরপুর গ্রামের পশ্চিমপাড়ার মওলা মিয়ার ছেলে মশিউর রহমানের বিয়ে ঠিকঠাক হয়।

পূর্ব নির্ধারিত তারিখ মোতাবেক শুক্রবার বিকেলে মেয়ের বাড়িতে চলছিল বিয়ের উৎসব। মেয়েটিকে সাজানোও হয়েছিল বধূর সাজে।

যখন ভূরিভোজে  ব্যস্ত বর ও বরযাত্রীরা। এমন সময় সাদুল্লাপুর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শাহনাজ আকতারের নির্দেশে বিয়ে বাড়িতে গিয়ে হাজির হন স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও পুলিশ।

এ মূহুর্তে  কাজী সুযোগ বুঝে সঁটকে পড়ে এবং বিয়েটি বন্ধ করে দেয় প্রশাসন।

এ বিষয়ে ইদিলপুর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান রাব্বী আবদুল্যা রিয়ন বলেন,জন্ম নিবন্ধন অনুয়ায়ী মেয়ের বয়স ঠিক ছিল।

তবে মেয়েটির এসএসসি সনদ অনুয়ায়ী ১৮ বছরের নিচে বয়স থাকায় তার বিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

অপরদিকে সাদুল্লাপুর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শাহনাজ আকতার বলেন, বাল্যবিয়ের প্রস্তুতি চলছে এমন খবর পেয়ে বিয়েটি পন্ড করে দেয়া হয়েছে। এসময় কাজী সাহেব পালিয়ে গেছে।

(Visited 1 times, 1 visits today)