বদলে যাওয়া তিতুমীর কলেজের হালচাল

  •  
  •  
  •  
  •  

নাজমুল হুদা: “তিতুমীর কলেজ অনেক মানুষের কাছে নেতিবাচক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হিসাবেই জনপ্রিয় ছিল। এর মূল কারণ ছিল স্থানীয়দের অনৈতিক আধিপত্য, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের কোন্দলসহ বিভিন্ন বিষয়ে মাঝে মধ্যেই সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে ভীতি ছড়াত।” যদিও এই চিত্রটি আজ থেকে প্রায় দশ-বার বছর পূর্বের ছিল।

কিন্তু বর্তমান চিত্রটি ঠিক ভিন্নরূপে রুপান্তরিত হয়েছে। কলেজটিতে লেখাপড়ার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের জ্ঞানকে সমৃদ্ধি ও নিজেকে বিকশিত করতে রয়েছে সহ-শিক্ষা মূলক সংগঠন সাংবাদিক সমিতি, বিতর্ক ক্লাব, বাংলাদেশ স্কাউট, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ক্যাডেট কোর, এমনকি “বাঁধন” নামের জনপ্রিয় রক্তদাতা সংগঠন। এছাড়াও শিক্ষার্থীবান্ধব পরিবেশে রয়েছে বর্তমান ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক সংগঠন আওয়ামীলীগ সহ বেশ কয়েকটি রাজনৈতিক সংগঠন।

কলেজের বর্তমান পরিস্থিতিতে লেখাপড়া করে স্বাছন্দবোধ করার কথা উল্লেখ করে সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানায়, পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে না পেরে আমরা অনেক দুঃখিত ছিলাম। আমাদের পরিবার থেকেও অনেক চাপ আসছিলো। তবে তিতুমীর কলেজে ভর্তির পরে এই কলেজের লেখাপড়ার পরিবেশ খুবই ভালো লাগছে আমাদের। তাছাড়া এই কলেজের সহ-শিক্ষা মূলক সংগঠন থেকে আমরা বেশ উপকৃত হচ্ছি। স্বতন্ত্র ভাবে বললে স্কাউট, বিতর্ক ক্লাব, সতিকসাস সহ বাঁধনের মতো রক্তদাতা সংগঠন গুলো অন্যতম।

কলেজটির রাজনৈতিক প্রভাবের কথা জানতে চাইলে ১ম বর্ষের শিক্ষার্থী সাহেদুজ্জামান সাকিব বলেন, এখানে সুন্দর পরিবেশে লেখাপড়ার ক্ষেত্রে রাজনৈতিক কোন খারাপ প্রভাব পরে না।

তাছাড়া আমাদের কলেজের ছাত্রলীগের সভাপতি রিপন ভাই ও সাধারণ সম্পাদক জুয়েল ভাই বেশ সহযোগী আমাদের জন্য। রাজনীতি করার জন্য কোনো প্রকার চাপ আমরা ক্যাম্পাসে পাই না। তারা আমাদের বিভিন্ন সাংস্কৃতিক কাজেও উৎসাহ করেন।

কলেজের অন্যতম কার্যকরী সংগঠন সরকারি তিতুমীর কলেজ সাংবাদিক সমিতি’র সাধারণ সম্পাদক সাব্বির আহমেদ এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, আমরা ইতোমধ্যেই একটি কর্মশালার সম্পন্ন করেছি। যেখানে প্রায় ১৫০ শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। আমরা আসলে পড়াশোনার পাশাপাশি মৌলিক বিষয়গুলো শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে চাই। শুদ্ধ কাজ দিয়ে যাতে তারা ক্যাম্পাসকে রাঙিয়ে তুলতে পারে- সেই অভিপ্রায় সতিকসাসের।

এছাড়াও কলেজটির সাম্প্রতিক জনপ্রিয় সংগঠন বিতর্ক ক্লাবের সভাপতি জনাব মাহাবুব হাসান রিপন বলেন, সরকারি তিতুমীর কলেজ বিতর্ক ক্লাব -এর মূলমন্ত্র হচ্ছে বিতর্কের মাধ্যমে শুদ্ধতার চর্চা করা। আমরা শিক্ষার্থীদের মধ্যে মুক্তবুদ্ধির চর্চা ছড়িয়ে দিতে চাই এবং তাঁদের আত্মপ্রত্যয়ী হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। আমাদের সাথে প্রায় ৩ হাজার শিক্ষার্থী এই প্ল্যাটফর্মে যুক্ত।

ইতিমধ্যে জাতীয় বিতর্ক উৎসবে আমরা সারা বাংলাদেশের মধ্যে তিতুমীর কলেজ কে শ্রেষ্ঠ করতে পেরেছি যা আমাদের একটি বড় অর্জন ও অনুপ্রেরণা। টিভি বিতর্কেও আমাদের ছেলে-মেয়েরা নিয়মিত অংশগ্রহণ করছে।

এসকল সংগঠন থেকে গতানুগতিক শিক্ষার বাইরেও বুদ্ধিদীপ্তমূলক শিক্ষা লাভও করতে পারছে যা তাদেরকে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হতে না পারার যন্ত্রনাও দূর করেছে বলেও সাধারণ শিক্ষার্থীরা জানান।

ঢা/এনএইচ/মমি

জুন ২৬, ২০১৯ ৯:৪৫

(Visited 19 times, 1 visits today)