পর্যায়ক্রমে সব বিভাগীয় শহরে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হবে: প্রধানমন্ত্রী

  •  
  •  
  •  
  •  

নিউজ ডেস্ক: পর্যায়ক্রমে দেশের সব বিভাগীয় শহরে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় করা হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এ সময় মানুষের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্য সেবা পৌঁছে দিতে সরকার কাজ করছে বলেও জানান তিনি।

বুধবার (১৮সেপ্টেম্বর) সকালে গাজীপুরের কাশিমপুরে তেতুইবাড়ি এলাকায় অবস্থিত শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজের প্রথম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা জানান।

বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন, বাংলাদেশে মধ্যে এই কলেজটি প্রথম আন্তর্জাতিকমানের নার্সিং কলেজ। এ নার্সিং কলেজ থেকে যেসব শিক্ষার্থী গ্র্যাজুয়েশন করলেন তারা সবাই আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা নিয়েছেন। তাদের দেখে অনেক তরুণ-তরুণী এ নার্সিং পেশায় আসতে আগ্রহী হবে।

নার্সিং অভিজ্ঞতা কাজে লাগার আহব্বান জনিয়ে তিনি বলেন, আর্তমানবতার সেবায় অভিজ্ঞতা ও অর্জিত জ্ঞানকে কাজে লাগাতে গ্র্যাজুয়েট নার্সদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা পর্যায়ক্রমে প্রতিটি বিভাগে একটি করে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে করে দেয়ার সে পদক্ষেপ নিয়েছি।

শেখ হসিনা  আরও বলেন, ১৯৯৬ সালে কমিউনিটি ক্লিনিক প্রতিষ্ঠা করার পর ২০০১ সালে যখন বিএনপি ক্ষমতায় এসে কমিউনিটি ক্লিনিকে মানুষ সেবা নিয়ে নৌকা মার্কায় নাকি ভোট দেবে এই যুক্তিতে তারা এই সেবা বন্ধ করে দেয়।

নার্সিং অবহেলিত ছিল জানিয়ে শেখ হাসিনা  বলেন, ‘নার্সিংয়ের মতো একটি সেবামূলক পেশা- যে পেশাটাকে আমি মনে করি সবচেয়ে সম্মানজনক পেশার একটি। একজন অসুস্থ মানুষ, তার পাশে দাঁড়ানো- এর চেয়ে বড় সেবা আর কী হতে পারে। কিন্তু সেই জায়গাটা সবচেয়ে বেশি অবহেলিত ছিল।’

জনগণের সেবা প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের কাজই হচ্ছে জনগণকে সেবা দেওয়া। আমরা স্বাস্থ্যসেবাকে গ্রাম পর্যন্ত পৌঁছে দিয়েছি। আমরা দেশের বিভিন্ন স্থানে বিষয়ভিত্তিক ইনস্টিটিউট করে দিয়েছি। সেখানে নার্স লাগবে।’

এ সময় নার্সদের সুযোগ-সুবিধা বাড়ানোর আশ্বাস দেন প্রধানমন্ত্রী। একই সঙ্গে নার্স তৈরি করে দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে পাঠানোর কথাও বলেন শেখ হাসিনা।

অনুষ্ঠানে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টের সহ -সভাপতি ও শেখ রেহানা বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন।

উক্ত অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজের সিইও মো. তৌফিক বিন ইসমাইল।

এ ছাড়া গ্র্যাজুয়েশন বক্তা হিসেবে বক্তব্য দেন মালয়েশিয়ার স্কুল অব মেডিসিন কেপিজে হেলথ কেয়ার ইউনির্ভাসিটি কলেজের উপাচার্য ও ডিন প্রফেসর দাতো ডা. লোকমান সাঈম।

অনুষ্ঠানে মন্ত্রী, সংসদ সদস্য ও সরকারি বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

ঢা/ইআ

(Visited 2 times, 1 visits today)