চুয়াডাঙ্গায় পেঁয়াজের দামে মুরগী!

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গায় ১ কেজি পেঁয়াজের যে দাম তা দিয়ে ১ কেজি মুরগী কিনতে পারবেন ক্রেতারা। জেলায় গত এক সপ্তাহে পেঁয়াজের দাম বাড়তে বাড়তে শুক্রবার পাইকারী বাজারে এর দাম উঠেছে ২২০ টাকা কেজি।

এই পেঁয়াজ খুচরা বাজারে ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করা হচ্ছে ২৫০ থেকে ২৬০ টাকা দরে। যা দিয়ে মুরগী বাজারে একজন ক্রেতা এক কেজি ওজনের একটি সোনালী মুরগী কিনতে পারবেন।

গত এক সপ্তাহ আগেও চুয়াডাঙ্গা বাজারে ক্রেতারা খুচরা বাজারে পেঁয়াজ কিনেছে ২০০ টাকা কেজি। ৭ দিনের ব্যবধানে হঠাৎ করেই বাজারে পেঁয়াজের দাম বেড়ে গেছে কেজি প্রতি ৬০ টাকা।

আরও পড়ুন: পেঁয়াজ: প্রতি কেজি ২৫০টাকা মাত্র!

ক্রেতা অভিযোগ করে বলছে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে বাজার মনিটারিং যদি ঠিক মতো করা যেত তা হলে কিছুটা হলেও দাম কমে আসতো পেঁয়াজের।

পেঁয়াজের পাইকারি ব্যবসায়ীরা বলছেন, মহাজনের কাছে থেকে বেশী দামে কেজি প্রতি পেঁয়াজ কিনে আনছেন তারা। আর তাইতো খুচরা দোকনদারদের কাছে বেশি দামে বিক্রি করা হচ্ছে। তারা জানান পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি হওয়ায় অনেক পাইকারী ব্যবসায়ী পেঁয়াজ বেঁচা বন্ধ করে দিয়েছে।

চুয়াডাঙ্গা বড় বাজারের সবজি ব্যবসায়ী রাকিবুল মিয়া বলেন, পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি হওয়ায় অনেকে পেঁয়াজ বাদে মূলা কিনছে। অন্যদিকে অনেক সময় টাকা দিলেও পাইকারী দোকানেও মিলছে না পেঁয়াজ।

নিচের বাজারের পাইকারি পেঁয়াজ ব্যবসায়ী সিরাজুল মিয়া বলেন, এক সপ্তাহে পেঁয়াজের দাম বেড়ে যাওয়ায় অনেক পাইকারী কাস্টমার কমে গেছে। বেশী দামে পেঁয়াজ কেনার ফলে বেশী দামেই বিক্রি করতে হচ্ছে।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সহকারী পরিচালক সজল আহম্মেদ বলেন, পেঁয়াজের দাম বৃদ্ধি শুধু চুয়াডাঙ্গাতে না সমগ্র দেশেজুড়েই। চুয়াডাঙ্গায় পেঁয়াজের পাইকারী ব্যবসায়ীরা পেঁয়াজ কিনে নিয়ে আসে রাজবাড়ি জেলা থেকে। বেশী দামে কেনার ফলে তারা বেশী দামেই পেঁয়াজ বিক্রি করছে।

তকে আমরা প্রতিনিয়ত বাজার মনিটারিং করছি। কোন ব্যবসায়ী যদি পেঁয়াজ বেশী দামে বিক্রির অসাধু উপায় চেষ্টা করে তার বিনুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার জানান, বাজারে পেঁয়াজের দাম মনিটারিং এ জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রতিদিন জেলার বড় বড় বাজারে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে।

ঢা/কেএস/তাশা

(Visited 1 times, 1 visits today)