চিকিৎসার অভাবে নারীর মৃত্যুর অভিযোগ

চিকিৎসার অভাবে নারীর মৃত্যুর অভিযোগ
  •  
  •  
  •  
  •  

বরিশাল প্রতিনিধি: বরিশালে শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতালে ইন্টার্নদের কর্মবিরতিকালীন সময়ে চিকিৎসার অভাবে এক রোগীর মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তৃতীয় তলায় সার্জারি বিভাগের ৯নং ওয়ার্ডে ওই নারী মৃত্যুবরণ করেন বলে বলেন মারা যাওয়া রোগীর স্বামী সেকেন্দার আলী হাওলাদার। তবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এখনো বিষয়টি জানেন না বলে দাবি করেছেন।

সোমবার দুপুর ১টায় মৃত্যুবরণ করেন।

জানা গেছে, বরিশাল সদর উপজেলার শায়েস্তাবাদ ইউনিয়নের বাসিন্দা সেকেন্দার আলী হাওলাদারের স্ত্রী নাসিমা বেগম দীর্ঘদিন ধরে পেপটিক আলসারে ভুগছিলেন। বেশি অসুস্থ হয়ে পড়লে ৩০ অক্টোবর বরিশাল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানের চিকিৎসক গুরুতর অসুস্থ নাসিমাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য শেবাচিম হাসপাতালে প্রেরণ করেন। গত ৩১ অক্টোবর সন্ধ্যায় তাকে ভর্তি করা হয় । প্রথমে তাদের চতুর্থ তলার মেডিসিন বিভাগের ৫নং ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। হাতে জখম থাকায় নাসিমা বেগমকে রোববার তৃতীয় তলায় সার্জারি বিভাগের ৯ নং ওয়ার্ডে স্থানান্তর করা হয়।

সেকেন্দার আলী জানান, ৩১ অক্টোবর ইমার্জেন্সিতে নিয়ে আসার সময়ে ডাক্তার যে ওষুধ দিয়েছে সেই ওষুধই টানা তিনদিন চলেছে। ওয়ার্ডে রোগী নেওয়ার পর থেকে এক সেকেন্ডের জন্যও কোন ডাক্তার দেখতে আসেনি। নার্সদের কাছে পরামর্শ করতে গেলে তারা খারাপ আচরণ করে তাড়িয়ে দিত।

আরও বলেন, আমরা যেদিন ভর্তি হয়েছি সেদিন দেখেছি ডাক্তাররা তাদের রুমে তালা মেরে চলে গেছেন। চিকিৎসা না দিয়ে আমার স্ত্রীকে মেরে ফেলেছে। তারা চিকিৎসা দিলে কোন সমস্যা হতো না বলে দাবি করেন তিনি।

মৃত নাসিমা বেগমের পুত্রবধূ সুমাইয়া বেগম বলেন, আমরা অনেক অনুরোধ করেছি ডাক্তার/নার্সকে এসে আমাদের রোগীকে দেখে যাওয়ার জন্য। কিন্তু কেউ আসেনি। অসহায়-পাগলের মত তিনদিন হাসপাতালের ডাক্তার-নার্সদের দুয়ারে দুয়ারে ঘুরছি। কিন্তু কেউ আসেনি।

হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ বাকির হোসেন জানান, চিকিৎসার অভাবে কেউ মারা গেছে এমন অভিযোগ জানা নেই। বিষয়টি আমি খোঁজ নিয়ে দেখছি।

ঢা/জিএমএস/এসআর

নভেম্বর ২, ২০২০ ৯:০৫

(Visited 37 times, 1 visits today)