খাদ্যের সাথে কি পরিমাণ প্লাস্টিক পাকস্থলীতে যায়

  •  
  •  
  •  
  •  

ঢাকা১৮ ডেস্ক: স্বাস্থ্য ও পরিবেশের জন্য ব্যাপক ক্ষতিকর দ্রব্যবস্তু প্লাস্টিক। নিত্যনৈতিক এই পণ্যের চাহিদা দিন কে দিন বেড়েই চলছে। বেড়েছে প্লাস্টিক উৎপাদন কারখানা শিল্পগুলোও। কিন্তু আমরা জানি না ক্ষতিকর এই বস্তু প্লাস্টিক প্রতিদিন, প্রতি সপ্তাহে, প্রতি মাসে, বছরে, দশ বছরে খাবারের সঙ্গে কী হারে আমাদের পেটে যায়।

প্লাস্টিক যেভাবে পেটে যায়
প্লাস্টিক পচনশীল বস্তু নয়। তাই তা খুব ছোট ছোট টুকরো হয়ে ছড়িয়ে পড়ে। সেই টুকরোগুলোই খাবারের সঙ্গে চলে যায় মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণীর পেটে।

গবেষণা যা বলেছে আর যা বলতে পারেনি
২০১৯ সালে ডাব্লিউডাব্লিউএফ এর প্রতিবেদনে উঠে আসে প্লাস্টিকের ভয়াবহতা। মানুষ এবং অন্যান্য প্রাণী কী পরিমাণ প্লাস্টিক খায় তার চিত্রও উঠে এসছে বিজ্ঞানের পরীক্ষায়। তাদের ধারণা এখানে শুধু মাইক্রোপ্লাস্টিকের পরিমাপ উঠে এসেছে। তবে ন্যানোপ্লাস্টিক হিসেবে এলে চিত্রটা নাকি অনেক ভয়াবহ হবে।

একদিনে কতটা
প্রতিদিন আমরা কি পরিমাণ প্লাস্টিক খাচ্ছি তার প্রতিবেদন প্রকাশ করে ডাব্লিউডাব্লিউএফ। জানা যায়, প্যাকেটজাত খাবার, প্লাস্টিকের পানির বোতল, প্লাস্টিকের চামচ, কাপ ইত্যাদি থেকে প্রতিদিন গড়ে পেটে যায় ০.৭ গ্রাম প্লাস্টিক।

এক সপ্তাহে একটা বোতাম
জানা যায়,গড়ে প্রতি এক সপ্তাহে আমরা সর্বোচ্চ ৫ গ্রাম ওজনের একটা বোতামের সমপরিমাণ প্লাস্টিক খেয়ে থাকি।

১০দিনে কমপক্ষে সাত গ্রাম
ডাব্লিউডাব্লিউএফ সমীক্ষা বলছে, প্রতি ১০ দিনে সাত গ্রামের মতো প্লাস্টিক আমাদের পেটে যেতে পারে। একটা প্রমাণ সাইজের প্লাস্টিকের কার্ডের ওজনও কিন্তু সাত গ্রামের মতো!

একমাসে লেগোর একটা ইট
মাসিক হিসেব করলে দেখা যাবে, কোনোদিন একটু কম আর কোনোদিন একটু বেশি করে খেলেও গড়ে লেগোর ৪×২ সাইজের একটা ইটের সমান প্লাস্টিক প্রাণীর পাকস্থলীতে যায়।

ছয় মাসে এত!
ডাব্লিউডাব্লিউএফ সমীক্ষা বলছে, প্রতি ছয়মাসে অন্তত ১২৫ গ্রাম প্লাস্টিক আমাদের পেটে যায়। যা আমাদের শরীরে বিভিন্ন রোগের বাসা বাধঁতে যথেষ্ট। ১২৫ গ্রাম মানে ঠিক এতটা?

এক বছরে একটা হেলমেট
বছরের হিসাব করলে প্রতি বছর আমাদের পেটে ঠিক ২৪৮ গ্রাম প্লাস্টিক যায়। যা একটি হেলমেটের সমপরিমাণ।

দশ বছরে একটা পাইপ
পরিবেশ সচেতন হয়ে প্লাস্টিক পুরোপুরি বর্জন না করলে সময় যত যাবে প্লাস্টিক খাওয়ার পরিমাণও বাড়তে থাকবে। সেক্ষেত্রে দশ বছরে পেটে যাবে ২.৫ কিলোগ্রাম প্লাস্টিক, যা কিনা ছবির ওই পাইপের সমান।

ঢা/আইএইচই

ডিসেম্বর ২০, ২০২০ ৮:৫৪

(Visited 52 times, 1 visits today)