কোস্ট গার্ড আজ ঠুঁটো জগন্নাথ নেই: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
  •  
  •  
  •  
  •  

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, ‘কোস্ট গার্ড আজ ঠুঁটো জগন্নাথ নেই। কোস্ট গার্ড আজ শক্তিশালী বাহিনীতে পরিণত হয়েছে। কোস্ট গার্ড কোস্টাল এরিয়াসহ চোরাচালান, অবৈধ মৎস্য আহরন নিয়ে কাজ করছে’।

রাজধানীর আগারগাওস্থ বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের সদরদপ্তরে বাহিনীটির ২৫ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীতে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা বলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘শুধু তাই নয়, এর সাথে নতুন নতুন আরো কাজ সম্পৃক্ত হচ্ছে। পরিবেশ রক্ষার জন্যও কোস্ট গার্ড কাজ করছে। ভবিষ্যতে আরো ইফেক্টিভলি কাজ করার জন্য প্রতিষ্ঠিত করছি’।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে কোস্ট গার্ডে চারটি পেট্রোল বোট, ৬টি পেট্রোল হ্যাসেলসহ মোট ২৩টি জাহাজ রয়েছে। এছাড়াও সর্বমোট ৯০ টি বিভিন্ন শ্রেণীর বোট রয়েছে। ৫৪টি স্টেশন আউট পোস্ট রয়েছে’।

চোরাচালান, মাদকসহ উপকূলীয় অঞ্চলে নিরাপত্তা বিধান সব কিছুই কোস্ট গার্ডের আওতায় রয়েছে বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

সমুদ্র সীমায় জাটকা নিধন কোস্ট গার্ড বন্ধ করছে উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘হিলশার উৎপাদন বেড়ে গেছে। কারণ, মাননীয় প্রধানন্ত্রীর নির্দেশনায় কয়েক মাস মা ইলিশ ধরা বন্ধ ছিল। আমরা যে জাটকাকে রক্ষা করেছি, মা ইলিশকে রক্ষা করেছি, সে জন্যই এ সফলতা এসেছে’।

কোস্ট গার্ডের সাফল্য প্রসঙ্গে আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘২০১৯ সালে প্রায় ১৯ শত কোটি টাকার অবৈধ দ্রব্যাদি কোস্ট গার্ড আটক করেছে। জন সম্পদ রক্ষার্তের জন্য ২ কোটি ২১ লাখ টাকা মূল্যের বিভিন্ন চোরাই কাঠ আটক করা হয়েছে। বিশেষ করে উপকূলীয় অঞ্চলে জীব বৈচিত্র্য রক্ষায় কাজ করছে’।

তিনি বলেন, ‘গভীর সমুদ্রে সার্চ এন্ড রেসকিউ অপারেশন চালিয়ে যাওয়ার জন্য ব্যবস্থা নিচ্ছি এবং করছি। কোস্ট গার্ডকে এই জায়গায় আরো শক্তিশালী করার জন্য পরিকল্পনা রয়েছে। আমরা খুব শীঘ্রই এগুলো বাস্তবায়ন করব’।

এছাড়াও কোস্টাল এরিয়াতে সার্ভেইল্যান্স সিস্টেম করতে যাচ্ছি আমরা। এ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে আলোচনা চলছে, এমইউ হয়েছে। এর উপযুক্ততা যাচাই বাছাই করে আমরা সেই জায়গাটিতে যাচ্ছি বলেও জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে স্বরাষ্ট মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন। এছাড়াও কোস্ট গার্ডের মহাপরিচালক রিয়ার এডমিরাল এম আশারাফুল হক, সামরিক ও বেসামরিক অতিথিবৃন্দ ছাড়াও বিদেশী কূটনৈতিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

ঢা/ এনএএইচ /আরকেএস

(Visited 4 times, 1 visits today)